০২:৩৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আচরণবিধি ভঙ্গের কারণে চুয়াডাঙ্গায় ৫ জনকে আটক,ও জেল-জরিমানা।

 

চুয়াডাঙ্গার সদর ও আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাচনে আচরণবিধি ভঙ্গসহ বিভিন্ন অভিযোগে পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে মাধ্যমে তাদের ভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড ও জরিমানা করা হয়েছে।

জানা গেছে, আচরণবিধি ভঙ্গসহ বিভিন্ন অভিযোগে আলমডাঙ্গা উপজেলার রতনপুর গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে রিপনকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ডসহ ২০০ টাকা জরিমানা। একই উপজেলার ভাংবাড়িয়া ইউনিয়নের ভোগাইল বগাদি পাড়ার আনারুল ইসলামের ছেলে সুজনকে পাঁচদিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

ম্যাজিস্ট্রেট নাঈমা জাহান এ আদালত পরিচালনা করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলায় ছয়ঘরিয়া এলাকায় ছয়ঘড়িয়া গ্রামের আলতাব হোসেনের ছেলে আনিছ আলীকে এক হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

এদিকে আলমডাঙ্গা ডাউকি ইউনিয়ন বশিরা মালিক ডাউকি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে ডাউকি গ্রামের সাফায়েত আলীর ছেলে রতন হোসেন (৩৫) সিল মারা ব্যালট পেপার নিয়ে ভোট দিতে এলে কেন্দ্রে দায়িত্ব থাকা পুলিশ সদস্যরা তাকে আটক করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাকে আটক করে।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বেগমপুর ইউনিয়নের নেহালপুর ভোট কেন্দ্রের পার্শ্ববর্তী রাস্তার ওপরে অসৎ উদ্দেশ্যে টাকার বিনিময় নেহালপুর গ্রামের মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর ছেলে রাশেদুল ইসলাম (৪০) ভোটারদের প্রলোভন দেখিয়ে মোটরসাইকেল প্রতীকে ভোট দেওয়ার জন্য পিড়াপিড়ির এক পর্যায়ে সংশ্লিষ্ট নির্বাচন মোবাইল ডিউটি পার্টি তাকে আটক করে। তার কাছ থেকে ৪১টি ৫০ টাকার নোট, ৬৯টি ১০০ টাকার নোট, ছয়টি ৫০০ টাকার নোট পাওয়া যায়। বর্তমানে অভিযুক্ত ব্যক্তি পুলিশ হেফাজতে আটক আছেন।

রিটার্নিং কর্মকর্তা ও চুয়াডাঙ্গা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) নাজমুল হামিদ রেজা ভ্রাম্যমাণ আদালত ও আটকের এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, চুয়াডাঙ্গা সদর ও আলমডাঙ্গা দুই উপজেলায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ চলছে। বিকেল ৪টা পর্যন্ত সদর উপজেলায় ৩১ শতাংশ এবং আলমডাঙ্গা উপজেলায় ২১ শতাংশ ভোট কাস্ট হয়েছে।

ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশ ও জেলা প্রশাসনের যৌথ বিশেষ মহড়া অনুষ্ঠিত

আচরণবিধি ভঙ্গের কারণে চুয়াডাঙ্গায় ৫ জনকে আটক,ও জেল-জরিমানা।

Update Time : ০৫:০৮:৫৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

 

চুয়াডাঙ্গার সদর ও আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাচনে আচরণবিধি ভঙ্গসহ বিভিন্ন অভিযোগে পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে মাধ্যমে তাদের ভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড ও জরিমানা করা হয়েছে।

জানা গেছে, আচরণবিধি ভঙ্গসহ বিভিন্ন অভিযোগে আলমডাঙ্গা উপজেলার রতনপুর গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে রিপনকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ডসহ ২০০ টাকা জরিমানা। একই উপজেলার ভাংবাড়িয়া ইউনিয়নের ভোগাইল বগাদি পাড়ার আনারুল ইসলামের ছেলে সুজনকে পাঁচদিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

ম্যাজিস্ট্রেট নাঈমা জাহান এ আদালত পরিচালনা করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলায় ছয়ঘরিয়া এলাকায় ছয়ঘড়িয়া গ্রামের আলতাব হোসেনের ছেলে আনিছ আলীকে এক হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

এদিকে আলমডাঙ্গা ডাউকি ইউনিয়ন বশিরা মালিক ডাউকি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে ডাউকি গ্রামের সাফায়েত আলীর ছেলে রতন হোসেন (৩৫) সিল মারা ব্যালট পেপার নিয়ে ভোট দিতে এলে কেন্দ্রে দায়িত্ব থাকা পুলিশ সদস্যরা তাকে আটক করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাকে আটক করে।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বেগমপুর ইউনিয়নের নেহালপুর ভোট কেন্দ্রের পার্শ্ববর্তী রাস্তার ওপরে অসৎ উদ্দেশ্যে টাকার বিনিময় নেহালপুর গ্রামের মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর ছেলে রাশেদুল ইসলাম (৪০) ভোটারদের প্রলোভন দেখিয়ে মোটরসাইকেল প্রতীকে ভোট দেওয়ার জন্য পিড়াপিড়ির এক পর্যায়ে সংশ্লিষ্ট নির্বাচন মোবাইল ডিউটি পার্টি তাকে আটক করে। তার কাছ থেকে ৪১টি ৫০ টাকার নোট, ৬৯টি ১০০ টাকার নোট, ছয়টি ৫০০ টাকার নোট পাওয়া যায়। বর্তমানে অভিযুক্ত ব্যক্তি পুলিশ হেফাজতে আটক আছেন।

রিটার্নিং কর্মকর্তা ও চুয়াডাঙ্গা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) নাজমুল হামিদ রেজা ভ্রাম্যমাণ আদালত ও আটকের এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, চুয়াডাঙ্গা সদর ও আলমডাঙ্গা দুই উপজেলায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ চলছে। বিকেল ৪টা পর্যন্ত সদর উপজেলায় ৩১ শতাংশ এবং আলমডাঙ্গা উপজেলায় ২১ শতাংশ ভোট কাস্ট হয়েছে।