০১:৫৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গার দশমাইলে ঘোড়ার কর্মীকে, মোটরসাইকেলের কর্মীদের ছুরিকাঘাত

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাচনে ঘোড়া প্রতীকের কর্মীকে ছুরিকাঘাতের অভিযোগ উঠেছে মোটরসাইকেল প্রতীকের কর্মীদের বিরুদ্ধে। আহত অবস্থায় মাসুদ রানা (৩৫) নামের ওই কর্মীকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার (৪ মে) সন্ধ্যার পর সদর উপজেলার দশমাইল এলাকায় পুলিশ বক্সের কাছে এ হামলার ঘটনা ঘটে

আহত মাসুদ রানা চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের হাসানহাটি গ্রামের রমজান আলীর ছেলে। এ ঘটনায় তার বাবা রমজান আলি বাদী হয়ে রাতেই চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মাসুদ রানা সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ঘোড়া প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী নঈম হাসান জোয়ার্দ্দারের কর্মী। শনিবার সন্ধ্যা ৭টা ২০ মিনিটের দিকে দশমাইল বাজারে পুলিশ বক্সের সামনে মোটরসাইকেল প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আজিজুল হোসেনের ৭-৮ জন কর্মী বাঁশের লাঠি সোঠা, কাঠের বাটাম, লোহার রড, রামদা, হাসুয়া এবং দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে নির্বাচনী কাজে বাধা প্রদান করেন। একপর্যায়ে মাসুদ রানাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ধারালো হাসুয়া দিয়ে আঘাত করলে তার ডান চোখের ওপর লেগে রক্তাক্ত জখম হয়।

রামদা দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায় আঘাত করলে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে পিঠের বামপাশে মারাত্মক জখম হয়। একপর্যায়ে কাঠের বাটাম দিয়ে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় এলোপাতাড়ি মারপিট করে জখম করে। পরে মাসুদ রানা চিৎকার করলে তাকে বিভিন্ন ধরনের ভয়-ভীতি এবং খুনের হুমকি ধামকি প্রদান করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন তারা।

আহত মাসুদ রানা বলেন, আমি দশমাইল পুলিশ বক্সের নিকট দাঁড়িয়ে ছিলাম। এ সময় সুজন, সাইদুল, হোসেনসহ কয়েকজন আমাকে জিজ্ঞাসা করে কিসের ভোট করছিস? জবাবে বলি আমি ঘোড়া প্রতীকের ভোট করছি। তারপরই পেছন থেকে আমাকে কাঁচি দিয়ে আঘাত করে কুপিয়ে জখম করে। এছাড়া আমাকে মারধর করে তারা।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. ওয়াহিদ মাহমুদ রবিন বলেন, কাঁচি জাতীয় কিছু দিয়ে জখম করা হয়েছে বলে ধারণা করছি। এছাড়া ঘাড় ও একটি চোখে আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ডিউটি অফিসার উপপরিদর্শক (এসআই) মামুন উক্ত ঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছেন বলে নিশ্চিত করেন।

ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশ ও জেলা প্রশাসনের যৌথ বিশেষ মহড়া অনুষ্ঠিত

চুয়াডাঙ্গার দশমাইলে ঘোড়ার কর্মীকে, মোটরসাইকেলের কর্মীদের ছুরিকাঘাত

Update Time : ০৫:৩১:৫১ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ মে ২০২৪

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাচনে ঘোড়া প্রতীকের কর্মীকে ছুরিকাঘাতের অভিযোগ উঠেছে মোটরসাইকেল প্রতীকের কর্মীদের বিরুদ্ধে। আহত অবস্থায় মাসুদ রানা (৩৫) নামের ওই কর্মীকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার (৪ মে) সন্ধ্যার পর সদর উপজেলার দশমাইল এলাকায় পুলিশ বক্সের কাছে এ হামলার ঘটনা ঘটে

আহত মাসুদ রানা চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের হাসানহাটি গ্রামের রমজান আলীর ছেলে। এ ঘটনায় তার বাবা রমজান আলি বাদী হয়ে রাতেই চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মাসুদ রানা সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ঘোড়া প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী নঈম হাসান জোয়ার্দ্দারের কর্মী। শনিবার সন্ধ্যা ৭টা ২০ মিনিটের দিকে দশমাইল বাজারে পুলিশ বক্সের সামনে মোটরসাইকেল প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আজিজুল হোসেনের ৭-৮ জন কর্মী বাঁশের লাঠি সোঠা, কাঠের বাটাম, লোহার রড, রামদা, হাসুয়া এবং দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে নির্বাচনী কাজে বাধা প্রদান করেন। একপর্যায়ে মাসুদ রানাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ধারালো হাসুয়া দিয়ে আঘাত করলে তার ডান চোখের ওপর লেগে রক্তাক্ত জখম হয়।

রামদা দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায় আঘাত করলে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে পিঠের বামপাশে মারাত্মক জখম হয়। একপর্যায়ে কাঠের বাটাম দিয়ে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় এলোপাতাড়ি মারপিট করে জখম করে। পরে মাসুদ রানা চিৎকার করলে তাকে বিভিন্ন ধরনের ভয়-ভীতি এবং খুনের হুমকি ধামকি প্রদান করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন তারা।

আহত মাসুদ রানা বলেন, আমি দশমাইল পুলিশ বক্সের নিকট দাঁড়িয়ে ছিলাম। এ সময় সুজন, সাইদুল, হোসেনসহ কয়েকজন আমাকে জিজ্ঞাসা করে কিসের ভোট করছিস? জবাবে বলি আমি ঘোড়া প্রতীকের ভোট করছি। তারপরই পেছন থেকে আমাকে কাঁচি দিয়ে আঘাত করে কুপিয়ে জখম করে। এছাড়া আমাকে মারধর করে তারা।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. ওয়াহিদ মাহমুদ রবিন বলেন, কাঁচি জাতীয় কিছু দিয়ে জখম করা হয়েছে বলে ধারণা করছি। এছাড়া ঘাড় ও একটি চোখে আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ডিউটি অফিসার উপপরিদর্শক (এসআই) মামুন উক্ত ঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছেন বলে নিশ্চিত করেন।