০১:৪৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

খুলনায় ব্যাংক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

  • Update Time : ১২:৫৯:৫৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  • ৩৯ Time View

রূপালী ব্যাংক লিমিটেড, খুলনার বয়রা মহিলা শাখার সিনিয়র অফিসার বাহাউ‌দ্দিন আহমেদের (৩৮) বিরুদ্ধে ৮৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মামলা হয়েছে।বুধবার(১৫ ফেব্রুয়ারি) দুদক খুলনা জেলা সমন্বিত কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক তরুণ কান্তি ঘোষ মামলাটি করেন। বাদী নিজেই মামলা করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার বর্ণনা থেকে জানা গেছে, বাহাউদ্দিন আহ‌মেদ রূপালী ব্যাংক লিমিটেড, খুলনার বয়রা মহিলা শাখায় কাজ করতেন। ২০২২ সালের ১১ অক্টোবর থেকে ৩০ অক্টোবর দায়িত্ব পালনকালে তিনি ৭টি লেনদেন করেন। এসময়ে তিনি ৮৫ লাখ টাকা উত্তোলন করেন। যা তিনি ৩১ অক্টোবর ইন্ট্রারেস্ট পে-অ্যাবল অন এফডিআর থেকে ৭১ লাখ টাকা ও চলতি হিসাব নম্বর ৬১২২০২০০০০০৬৩ থেকে ১৪ লাখ টাকা নিয়ে সমন্বয় করেন।

একই বছরের ৭ ও ৯ নভেম্বর ইন্ট্রারেস্ট পে-অ্যাবল অন এফডিআর থেকে যথাক্রমে ৯ লাখ এবং ৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা মোট ১৮ লাখ টাকাসহ সর্বমোট ৮৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা প্রতারণা, জাল ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে আত্মসাত করেন। এছাড়াও তিনি চালানে প্রায় ১ কোটি ৮৫ লাখ টাকার গড়মিল করেছেন।এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়, ব্যাংক লেনদেনের সময় তিনি (বাহাউদ্দিন আহমেদ) উক্ত শাখার ব্যবস্থাপক মাসুকা নাসরিন ও জোতি প্রভা রায়ের আইডি কৌশলে ব্যবহার করেন।

Tag :
জনপ্রিয়

নীলমনিগনজ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এস এস সি ৯৭ ব্যাচের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত

খুলনায় ব্যাংক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

Update Time : ১২:৫৯:৫৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

রূপালী ব্যাংক লিমিটেড, খুলনার বয়রা মহিলা শাখার সিনিয়র অফিসার বাহাউ‌দ্দিন আহমেদের (৩৮) বিরুদ্ধে ৮৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মামলা হয়েছে।বুধবার(১৫ ফেব্রুয়ারি) দুদক খুলনা জেলা সমন্বিত কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক তরুণ কান্তি ঘোষ মামলাটি করেন। বাদী নিজেই মামলা করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার বর্ণনা থেকে জানা গেছে, বাহাউদ্দিন আহ‌মেদ রূপালী ব্যাংক লিমিটেড, খুলনার বয়রা মহিলা শাখায় কাজ করতেন। ২০২২ সালের ১১ অক্টোবর থেকে ৩০ অক্টোবর দায়িত্ব পালনকালে তিনি ৭টি লেনদেন করেন। এসময়ে তিনি ৮৫ লাখ টাকা উত্তোলন করেন। যা তিনি ৩১ অক্টোবর ইন্ট্রারেস্ট পে-অ্যাবল অন এফডিআর থেকে ৭১ লাখ টাকা ও চলতি হিসাব নম্বর ৬১২২০২০০০০০৬৩ থেকে ১৪ লাখ টাকা নিয়ে সমন্বয় করেন।

একই বছরের ৭ ও ৯ নভেম্বর ইন্ট্রারেস্ট পে-অ্যাবল অন এফডিআর থেকে যথাক্রমে ৯ লাখ এবং ৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা মোট ১৮ লাখ টাকাসহ সর্বমোট ৮৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা প্রতারণা, জাল ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে আত্মসাত করেন। এছাড়াও তিনি চালানে প্রায় ১ কোটি ৮৫ লাখ টাকার গড়মিল করেছেন।এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়, ব্যাংক লেনদেনের সময় তিনি (বাহাউদ্দিন আহমেদ) উক্ত শাখার ব্যবস্থাপক মাসুকা নাসরিন ও জোতি প্রভা রায়ের আইডি কৌশলে ব্যবহার করেন।