০৯:২২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ঝিনাইদহে বঁটি দিয়ে স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা

  • MD Abdulla Haq
  • Update Time : ০৬:১৬:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩১ জুলাই ২০২৩
  • ৬০ Time View

ঝিনাইদহের শৈলকূপায় পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রীকে বঁটি দিয়ে গলা কেটে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। রোববার রাত ১২টার দিকে উপজেলার পদমদি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নাজমা খাতুন (৪০) ওই গ্রামের মৃত ইজাহার শেখের মেয়ে ও পার্শ্ববর্তী চর ত্রিবেনী গ্রামের রইচ উদ্দিনের স্ত্রী। স্বামীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় দুই সন্তান নিয়ে বাবার বাড়িতে থাকতেন নাজমা খাতুন। তার স্বামী রইচ উদ্দিন দ্বিতীয় বিয়ে করে ঢাকায় থাকতেন।

নিহত নাজমার ভাবি শাহানাজ খাতুন বলেন, আমরা ঘুমিয়ে গিয়েছিলাম। হঠাৎ চিৎকার চেঁচামেচিতে উঠে দেখি আমার ননদ নাজমার রক্তাক্ত দেহ বিছানার ওপর পড়ে আছে। পরে পুলিশকে খবর দিলে লাশটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

নিহত নাজমা খাতুনের ছোট ছেলে তাওজিদ হোসেন (৭) বলে- রাতে তার মা-বাবা ঝগড়া করছিল। ঝগড়ার একপর্যায়ে আব্বু বঁটি দিয়ে মাকে কোপ দেয়। তারপর মা মারা যায়। আব্বু পালিয়ে গেছে।

শৈলকূপা থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, রাতে উপজেলার পদমদী গ্রাম থেকে নাজমা খাতুনের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে তার স্বামী তাকে হত্যা করে পালিয়ে গেছে। তাকে গ্রেফতারের জন্য আমরা অভিযান চালাচ্ছি।

Tag :
About Author Information

MD Abdulla Haq

জনপ্রিয়

শবে বরাতের নামাজের নিয়ম ও দোয়া

ঝিনাইদহে বঁটি দিয়ে স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা

Update Time : ০৬:১৬:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩১ জুলাই ২০২৩

ঝিনাইদহের শৈলকূপায় পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রীকে বঁটি দিয়ে গলা কেটে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। রোববার রাত ১২টার দিকে উপজেলার পদমদি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নাজমা খাতুন (৪০) ওই গ্রামের মৃত ইজাহার শেখের মেয়ে ও পার্শ্ববর্তী চর ত্রিবেনী গ্রামের রইচ উদ্দিনের স্ত্রী। স্বামীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় দুই সন্তান নিয়ে বাবার বাড়িতে থাকতেন নাজমা খাতুন। তার স্বামী রইচ উদ্দিন দ্বিতীয় বিয়ে করে ঢাকায় থাকতেন।

নিহত নাজমার ভাবি শাহানাজ খাতুন বলেন, আমরা ঘুমিয়ে গিয়েছিলাম। হঠাৎ চিৎকার চেঁচামেচিতে উঠে দেখি আমার ননদ নাজমার রক্তাক্ত দেহ বিছানার ওপর পড়ে আছে। পরে পুলিশকে খবর দিলে লাশটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

নিহত নাজমা খাতুনের ছোট ছেলে তাওজিদ হোসেন (৭) বলে- রাতে তার মা-বাবা ঝগড়া করছিল। ঝগড়ার একপর্যায়ে আব্বু বঁটি দিয়ে মাকে কোপ দেয়। তারপর মা মারা যায়। আব্বু পালিয়ে গেছে।

শৈলকূপা থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, রাতে উপজেলার পদমদী গ্রাম থেকে নাজমা খাতুনের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে তার স্বামী তাকে হত্যা করে পালিয়ে গেছে। তাকে গ্রেফতারের জন্য আমরা অভিযান চালাচ্ছি।