১২:৪৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কার্পাসডাঙ্গা বাঘাডাঙ্গায় বেড়াতে আসা যু্বতীকে বখাটেদের উৎপাত:বাধা দেওয়ায় মারধর:পুলিশ ফাঁড়িতে লিখিত অভিযোগ

  • Update Time : ১২:৫৬:২৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৩
  • ৪৫ Time View

 

স্টাফ রিপোর্টার:চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের বাঘাডাঙ্গা গ্রামের মিশন পাড়ার মৃত পটল মন্ডলের ছেলে জয়ের বাড়িতে তার বোন সুকৃতির ননদ ঢাকা গাজীপুর থেকে বেড়াতে আসে।এসময় জয়ের ছেলে অর্পন মন্ডল গতকাল শক্রুবার বিকাল ৩ টার দিকে তার ঐ আত্মীয়াকে নিয়ে গ্রামে বেড়াতে বের হলে একই গ্রামের তিন বখাটে নিরানের ছেলে সুমন, মিত্ত নের ছেলে বাঁধন ও সহিদুলের ছেলে শরীফুল তাকে নানান ভাবে উত্যাক্ত করে।এ ঘটনায় জয় মন্ডলের ছেলে অর্পন তাদের বারন করলে তিন বখাটে তাকে বেধড়ক মারপিট সহ মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করে।এ ঘটনায় জয় বাদী হয়ে কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়িতে একটি লিখিত অভিযোগ করেছে।জয় জানান বখাটে সুমনের ভাই বাংলাদেশ সেনাবাহিনির সদস্য পদে চাকুরি করে।যার কারনে তারা ধারাকে সরা জন
করে প্রায় সময় গ্রামে নানাবিধ গন্ডগোল ও বাইরে থেকে আসা মেয়েদের করে।আর তার ভাই এর ক্ষমতা দেখায়। সে আরো জানায় তার ভাই ও একবার ইউনিয়নের একটি মেয়েকে উত্যাক্ত করে ও সে সময় দামুড়হুদা মডেল থানায় তার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ হলে মুচলেকা দিয়ে হাতে পায়ে ধরে কোন রকমে নিজেকে রক্ষা করে।জয় আমাদের মেয়েরা এসব বখাটেদের কারনে নিরাপদ নই।ঠিকমত কলেজে যেতে পারেনা। ভয় পাই।তারা সব সময় ক্ষমতা ও টাকার গরম দেখায়।এ বিষয়ে অভিযুক্তদের সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হলেও তাদের কাউকে বাড়ি পাওয়া যায়নি।এ বিষয়ে কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই ইমরানের সাথে কথা বললে তিনি জানান এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ হয়েছে। অপরাধী যত বড়ই ক্ষমতাধর হোক কোন ছাড় নেই।এ বিষয়ে দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ( ওসি)সাইফুলের সাথে কথা বললে তিনি জানান বিষয়টি আমি এখনই দেখছি।অপরাধী যেই হোক তার কোন প্রকার ছাড় নেই।যথাযথ আইনগত ব্যাবস্থা নেওয়া হবে। বখাটে তিনজনের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী করে দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইফুল ইসলামের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকাবাসী সহ সচেতন মহল

Tag :
জনপ্রিয়

নীলমনিগনজ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এস এস সি ৯৭ ব্যাচের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত

কার্পাসডাঙ্গা বাঘাডাঙ্গায় বেড়াতে আসা যু্বতীকে বখাটেদের উৎপাত:বাধা দেওয়ায় মারধর:পুলিশ ফাঁড়িতে লিখিত অভিযোগ

Update Time : ১২:৫৬:২৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৩

 

স্টাফ রিপোর্টার:চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের বাঘাডাঙ্গা গ্রামের মিশন পাড়ার মৃত পটল মন্ডলের ছেলে জয়ের বাড়িতে তার বোন সুকৃতির ননদ ঢাকা গাজীপুর থেকে বেড়াতে আসে।এসময় জয়ের ছেলে অর্পন মন্ডল গতকাল শক্রুবার বিকাল ৩ টার দিকে তার ঐ আত্মীয়াকে নিয়ে গ্রামে বেড়াতে বের হলে একই গ্রামের তিন বখাটে নিরানের ছেলে সুমন, মিত্ত নের ছেলে বাঁধন ও সহিদুলের ছেলে শরীফুল তাকে নানান ভাবে উত্যাক্ত করে।এ ঘটনায় জয় মন্ডলের ছেলে অর্পন তাদের বারন করলে তিন বখাটে তাকে বেধড়ক মারপিট সহ মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করে।এ ঘটনায় জয় বাদী হয়ে কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়িতে একটি লিখিত অভিযোগ করেছে।জয় জানান বখাটে সুমনের ভাই বাংলাদেশ সেনাবাহিনির সদস্য পদে চাকুরি করে।যার কারনে তারা ধারাকে সরা জন
করে প্রায় সময় গ্রামে নানাবিধ গন্ডগোল ও বাইরে থেকে আসা মেয়েদের করে।আর তার ভাই এর ক্ষমতা দেখায়। সে আরো জানায় তার ভাই ও একবার ইউনিয়নের একটি মেয়েকে উত্যাক্ত করে ও সে সময় দামুড়হুদা মডেল থানায় তার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ হলে মুচলেকা দিয়ে হাতে পায়ে ধরে কোন রকমে নিজেকে রক্ষা করে।জয় আমাদের মেয়েরা এসব বখাটেদের কারনে নিরাপদ নই।ঠিকমত কলেজে যেতে পারেনা। ভয় পাই।তারা সব সময় ক্ষমতা ও টাকার গরম দেখায়।এ বিষয়ে অভিযুক্তদের সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হলেও তাদের কাউকে বাড়ি পাওয়া যায়নি।এ বিষয়ে কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই ইমরানের সাথে কথা বললে তিনি জানান এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ হয়েছে। অপরাধী যত বড়ই ক্ষমতাধর হোক কোন ছাড় নেই।এ বিষয়ে দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ( ওসি)সাইফুলের সাথে কথা বললে তিনি জানান বিষয়টি আমি এখনই দেখছি।অপরাধী যেই হোক তার কোন প্রকার ছাড় নেই।যথাযথ আইনগত ব্যাবস্থা নেওয়া হবে। বখাটে তিনজনের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী করে দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইফুল ইসলামের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকাবাসী সহ সচেতন মহল