১২:১১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুনিয়ার বখাটে জিহাদের খপ্পরে পড়ে স্কুল ছাত্রীর ভবিষ্যত অনিশ্চিত:বারন সত্তেও ডিসটার্ব করার অভিযোগ

  • Update Time : ০৭:০৩:১৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১
  • ৮৫ Time View

কার্পাসডাঙ্গা প্রতিনিধি:চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার নাটুদাহ ইউনিয়নের  কুনিয়া চাঁদপুর গ্রামের নুরুল হকের ছেলে কানাইডাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর ছাত্র জিহাদ আলীর খপ্পরে পড়ে কুনিয়া চাঁদপুর গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত পরিবারের  মেয়ে (মেয়েটির ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে নাম পরিচয় গোপন করা হলো) কুনিয়া চাঁদপুর সিদ্দিকিয়া দাখিল মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রীর ভবিষ্যত অনিশ্চিতের দিকে চলে যাচ্ছে।মেয়েটির দাদা অভিযোগ করে বলেন জিহাদকে বারংবার বারন করা সত্তেও সে আমাদের নাতনীর পিছনে ঘুরঘুর করে। আমাদের দরজায় এসে কড়া নাড়ে।শিষ দেয় নানান ভাবে অত্যাচার করে।তবে এ বিষয়ে ছেলেটির পরিবার উত্যাক্তের বিষয়টড অস্বীকার করেন।এ বিষয়ে মেয়ের দাদা বলেন তাদের নাতনী নাবালিকা। ছেলেটি তাকে ফুসলিয়ে ভুল বুঝিয়ে কোন সম্পর্ক করার চেষ্টা করে তার ক্ষতি করতে পারে।তিনি আরো জানান এ বিষয়ে চারুলিয়া ক্যাম্পে বসে   উভয়পক্ষ বসে আপোষ মিমাংসা করা হয়েছে।যা স্থানীয় চেয়ারম্যান অবগত আছেন। ছেলে পক্ষ মুচলেকা দিয়েছেন তাদের ছেলে আর কোন দিন এধরনের আচরন করবে না।এ বিষয়ে নাটুদাহ ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফির সাথে কথা বললে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন ঘটনাটি সত্য। ছেলে মেয়ে উভয়ই নাবালক ও নাবালিকা। ছেলেটিকে এ বিষয়ে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে।যাতে করে ভবিষ্যতে মেয়েটিকে সে আর জ্বালাতন না করে।এবং দুজনকেই সুন্দর ভাবে পড়াশোনায় মন দিতে বলা হয়েছে। মেয়েটির দাদা জানান ক্যাম্পে  মুচলেকা দেবার পরও তারা আমাদের ও আমার নাতনীর সম্মান হানী করার চেষ্টা করছে । তিনি জানান এবার যদি পুনরায় সে এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটায় তাহলে দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করবেন।

Tag :
জনপ্রিয়

পান বরজে আগুন, পুড়ে শেষ হলো কৃষকের স্বপ্ন

কুনিয়ার বখাটে জিহাদের খপ্পরে পড়ে স্কুল ছাত্রীর ভবিষ্যত অনিশ্চিত:বারন সত্তেও ডিসটার্ব করার অভিযোগ

Update Time : ০৭:০৩:১৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১

কার্পাসডাঙ্গা প্রতিনিধি:চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার নাটুদাহ ইউনিয়নের  কুনিয়া চাঁদপুর গ্রামের নুরুল হকের ছেলে কানাইডাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর ছাত্র জিহাদ আলীর খপ্পরে পড়ে কুনিয়া চাঁদপুর গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত পরিবারের  মেয়ে (মেয়েটির ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে নাম পরিচয় গোপন করা হলো) কুনিয়া চাঁদপুর সিদ্দিকিয়া দাখিল মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রীর ভবিষ্যত অনিশ্চিতের দিকে চলে যাচ্ছে।মেয়েটির দাদা অভিযোগ করে বলেন জিহাদকে বারংবার বারন করা সত্তেও সে আমাদের নাতনীর পিছনে ঘুরঘুর করে। আমাদের দরজায় এসে কড়া নাড়ে।শিষ দেয় নানান ভাবে অত্যাচার করে।তবে এ বিষয়ে ছেলেটির পরিবার উত্যাক্তের বিষয়টড অস্বীকার করেন।এ বিষয়ে মেয়ের দাদা বলেন তাদের নাতনী নাবালিকা। ছেলেটি তাকে ফুসলিয়ে ভুল বুঝিয়ে কোন সম্পর্ক করার চেষ্টা করে তার ক্ষতি করতে পারে।তিনি আরো জানান এ বিষয়ে চারুলিয়া ক্যাম্পে বসে   উভয়পক্ষ বসে আপোষ মিমাংসা করা হয়েছে।যা স্থানীয় চেয়ারম্যান অবগত আছেন। ছেলে পক্ষ মুচলেকা দিয়েছেন তাদের ছেলে আর কোন দিন এধরনের আচরন করবে না।এ বিষয়ে নাটুদাহ ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফির সাথে কথা বললে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন ঘটনাটি সত্য। ছেলে মেয়ে উভয়ই নাবালক ও নাবালিকা। ছেলেটিকে এ বিষয়ে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে।যাতে করে ভবিষ্যতে মেয়েটিকে সে আর জ্বালাতন না করে।এবং দুজনকেই সুন্দর ভাবে পড়াশোনায় মন দিতে বলা হয়েছে। মেয়েটির দাদা জানান ক্যাম্পে  মুচলেকা দেবার পরও তারা আমাদের ও আমার নাতনীর সম্মান হানী করার চেষ্টা করছে । তিনি জানান এবার যদি পুনরায় সে এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটায় তাহলে দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করবেন।