০৭:০৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মাছ চাষে গড়ব দেশ বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ স্লোগানে সপ্তাহব্যাপী চুয়াডাঙ্গায় জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০১৯ পালিত

  • MD Abdulla Haq
  • Update Time : ০৪:৫৭:১৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯
  • ১১৪ Time View

চুয়াডাঙ্গা জেলায়, মাছ চাষে গড়ব দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ স্লোগানে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০১৯’। সপ্তাহব্যাপী নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে পালিত হচ্ছে। জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে চুয়াডাঙ্গায় সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে চুয়াডাঙ্গা জেলায় বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। দেশীয় প্রজাতির মাছ সংরক্ষণের জন্য বিভিন্ন উদ্যেগ গ্রহণ করা হয়েছে। বুধবার ১৭ জুলাই থেকে ২৩ শে জুলাই পযন্ত। আজ থেকে শুরু হচ্ছে সপ্তাহব্যাপী ২৭তম দিবসটি। যা শেষ হবে আগামী মঙ্গলবার। চুয়াডাঙ্গা জেলায় প্রতি বছর মাছের চাহিদা রয়েছে ২৬৭৪৯ মেট্রিক টন। কিন্তু উৎপাদন হয় ১৯২৩৭ মেট্রিক টন। যার ফলে মাছের ঘাটতি থেকে যাচ্ছে জেলায়। চুয়াডাঙ্গায় মাছের চাহিদা পূরণের জন্য মৎস্য চাষীদের উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে। সরকারি ভাবে মৎস্য চাষীদের সব রকমের সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. মাহবুবুর রহমান। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন জেলা মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মেহেরুন নেছা, সদর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা হামিদুর রহমান প্রমুখ।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃখক বাণী দিয়েছেন। বাণীতে তারা মৎস্যচাষী, মৎস্যজীবী, ব্যবসায়ী, উদ্যোক্তা, মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি মোঃ আব্দুল হামিদ তার বাণীতে বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণ ও রূপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নে মৎস্য খাতের সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিকতা, একাগ্রতা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন। রাষ্ট্রপতি বাণীতে বলেন, জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে মৎস্য একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং সম্ভাবনাময় খাত। মৎস্য খাতের উন্নয়নে সরকার ইতোমধ্যে অভ্যন্তরীণ বদ্ধ জলাশয়ে উন্নত প্রযুক্তির মৎস্যচাষ সম্প্রসারণ, উন্মুক্ত জলাশয়ে মাছের পোনা অবমুক্তকরণ, মৎস্য আবাসস্থল উন্নয়ন ও অভয়াশ্রম স্থাপন, প্রজননক্ষম ইলিশ ও জাটকা সংরক্ষণ কার্যক্রম জোরদারকরণ, মৎস্যচাষী ও মৎস্যজীবীদের লাগসই প্রশিক্ষণসহ ব্যাপক উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে। তিনি বলেন, সরকারের গৃহীত উন্নয়নমূলক কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ আজ মাছ উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। রাষ্ট্রপতি বলেন, অভ্যন্তরীণ ও সামুদ্রিক মৎস্য সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা এবং এর যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করা সম্ভব হলে এ সম্পদ ২০২১ সালের মধ্যে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে সক্ষম হবে।

এদিকে, প্রধানমন্ত্রী এক বাণীতে বলেন, মৎস্য খাত বর্তমান সরকারের একটি অন্যতম অগ্রাধিকারভুক্ত খাত। দেশের বিপুল জনগোষ্ঠীর পুষ্টি চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে সরকার এ খাতে পরিকল্পিত উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। সমাজভিত্তিক মৎস্যচাষ কার্যক্রম সম্প্রসারণ ও জোরদারকরণ, বিল নার্সারি কার্যক্রম গ্রহণ ও মুক্ত জলাশয়ে মাছের পোনা অবমুক্তকরণ, মৎস্য অভয়াশ্রম সৃষ্টি, গবেষণার মাধ্যমে উন্নত প্রযুক্তি উদ্ভাবন ও সম্প্রসারণ করাসহ বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এ ছাড়া প্রাকৃতিক জলাশয়ের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা, জলজ জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ, পরিবেশবান্ধব ও উন্নত প্রযুক্তিনির্ভর কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। ফলে দেশ আজ মৎস্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ। তিনি আরও বলেন, রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১ অর্জনের ক্ষেত্রে অভ্যন্তরীণ মৎস্য সম্পদের পাশাপাশি সামুদ্রিক মৎস্য সম্পদ একটি অপার সম্ভাবনাময় ক্ষেত্র হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। গবেষণা ও জরিপ জাহাজ, আর ভি মীন সন্ধানী কর্তৃক জরিপ কাজ পরিচালনা করে এ পর্যন্ত ৪৩০ সামুুদ্রিক মৎস্য প্রজাতি শনাক্ত করা হয়েছে। সামুদ্রিক মৎস্য সম্পদ ব্যবস্থাপনায় এবং জেলেদের জীবনের নিরাপত্তা বিধানে ভিটিএমএস মনিটরিং কার্যক্রম জোরদার করতে হবে বলেও জানান তিনি।

Tag :
About Author Information

MD Abdulla Haq

চুয়াডাঙ্গায় প্রায় কোটি টাকার স্বর্ণসহ দর্শনার তাছলিমা আটক

মাছ চাষে গড়ব দেশ বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ স্লোগানে সপ্তাহব্যাপী চুয়াডাঙ্গায় জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০১৯ পালিত

Update Time : ০৪:৫৭:১৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯

চুয়াডাঙ্গা জেলায়, মাছ চাষে গড়ব দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ স্লোগানে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০১৯’। সপ্তাহব্যাপী নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে পালিত হচ্ছে। জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে চুয়াডাঙ্গায় সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে চুয়াডাঙ্গা জেলায় বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। দেশীয় প্রজাতির মাছ সংরক্ষণের জন্য বিভিন্ন উদ্যেগ গ্রহণ করা হয়েছে। বুধবার ১৭ জুলাই থেকে ২৩ শে জুলাই পযন্ত। আজ থেকে শুরু হচ্ছে সপ্তাহব্যাপী ২৭তম দিবসটি। যা শেষ হবে আগামী মঙ্গলবার। চুয়াডাঙ্গা জেলায় প্রতি বছর মাছের চাহিদা রয়েছে ২৬৭৪৯ মেট্রিক টন। কিন্তু উৎপাদন হয় ১৯২৩৭ মেট্রিক টন। যার ফলে মাছের ঘাটতি থেকে যাচ্ছে জেলায়। চুয়াডাঙ্গায় মাছের চাহিদা পূরণের জন্য মৎস্য চাষীদের উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে। সরকারি ভাবে মৎস্য চাষীদের সব রকমের সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. মাহবুবুর রহমান। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন জেলা মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মেহেরুন নেছা, সদর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা হামিদুর রহমান প্রমুখ।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃখক বাণী দিয়েছেন। বাণীতে তারা মৎস্যচাষী, মৎস্যজীবী, ব্যবসায়ী, উদ্যোক্তা, মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি মোঃ আব্দুল হামিদ তার বাণীতে বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণ ও রূপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নে মৎস্য খাতের সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিকতা, একাগ্রতা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন। রাষ্ট্রপতি বাণীতে বলেন, জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে মৎস্য একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং সম্ভাবনাময় খাত। মৎস্য খাতের উন্নয়নে সরকার ইতোমধ্যে অভ্যন্তরীণ বদ্ধ জলাশয়ে উন্নত প্রযুক্তির মৎস্যচাষ সম্প্রসারণ, উন্মুক্ত জলাশয়ে মাছের পোনা অবমুক্তকরণ, মৎস্য আবাসস্থল উন্নয়ন ও অভয়াশ্রম স্থাপন, প্রজননক্ষম ইলিশ ও জাটকা সংরক্ষণ কার্যক্রম জোরদারকরণ, মৎস্যচাষী ও মৎস্যজীবীদের লাগসই প্রশিক্ষণসহ ব্যাপক উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে। তিনি বলেন, সরকারের গৃহীত উন্নয়নমূলক কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ আজ মাছ উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। রাষ্ট্রপতি বলেন, অভ্যন্তরীণ ও সামুদ্রিক মৎস্য সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা এবং এর যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করা সম্ভব হলে এ সম্পদ ২০২১ সালের মধ্যে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে সক্ষম হবে।

এদিকে, প্রধানমন্ত্রী এক বাণীতে বলেন, মৎস্য খাত বর্তমান সরকারের একটি অন্যতম অগ্রাধিকারভুক্ত খাত। দেশের বিপুল জনগোষ্ঠীর পুষ্টি চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে সরকার এ খাতে পরিকল্পিত উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। সমাজভিত্তিক মৎস্যচাষ কার্যক্রম সম্প্রসারণ ও জোরদারকরণ, বিল নার্সারি কার্যক্রম গ্রহণ ও মুক্ত জলাশয়ে মাছের পোনা অবমুক্তকরণ, মৎস্য অভয়াশ্রম সৃষ্টি, গবেষণার মাধ্যমে উন্নত প্রযুক্তি উদ্ভাবন ও সম্প্রসারণ করাসহ বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এ ছাড়া প্রাকৃতিক জলাশয়ের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা, জলজ জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ, পরিবেশবান্ধব ও উন্নত প্রযুক্তিনির্ভর কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। ফলে দেশ আজ মৎস্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ। তিনি আরও বলেন, রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১ অর্জনের ক্ষেত্রে অভ্যন্তরীণ মৎস্য সম্পদের পাশাপাশি সামুদ্রিক মৎস্য সম্পদ একটি অপার সম্ভাবনাময় ক্ষেত্র হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। গবেষণা ও জরিপ জাহাজ, আর ভি মীন সন্ধানী কর্তৃক জরিপ কাজ পরিচালনা করে এ পর্যন্ত ৪৩০ সামুুদ্রিক মৎস্য প্রজাতি শনাক্ত করা হয়েছে। সামুদ্রিক মৎস্য সম্পদ ব্যবস্থাপনায় এবং জেলেদের জীবনের নিরাপত্তা বিধানে ভিটিএমএস মনিটরিং কার্যক্রম জোরদার করতে হবে বলেও জানান তিনি।