০৫:৪১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নাগরপুরে যমুনা নদীর তীর ভাঙ্গনে, সুরক্ষা বাধ নির্মানে মানববন্ধন

  • Update Time : ১২:২৪:১৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০
  • ৪৬ Time View

নাগরপুরে যমুনা নদীর তীর ভাঙ্গনে, সুরক্ষা বাধ নির্মানে মানববন্ধন

সোলায়মান,নাগরপুর (টাংগাইল) থানা প্রতিনিধি

টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার দপ্তিয়র ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুরে যমুনা নদীর তীরে ভাঙন প্রতিরোধে সুরক্ষা বাঁধ নির্মাণের দাবি করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী। এ দাবিতে তারা শনিবার দুপুরে যমুনা নদীর তীরে মানববন্ধন ও সমাবেশ করে। যমুনা নদী ভাঙন কবলিত দপ্তিয়র ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণ এ কর্মসূচির আয়োজন করে। এ সময় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক শাহজাহান সিরাজ পান্না, দপ্তিয়র ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল হাশেম, দপ্তিয়র ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আজিজুল হক পান্না, ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক নিতুজ্জামান তুনির, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান প্রমূখ।

বক্তারা বলেন, দপ্তিয়র ও সলিমাবাদ ইউনিয়নের হাজার হাজার ঘরবাড়ি ইতিমধ্যেই নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। প্রতি বছরই গ্রামের পর গ্রাম যমুনার তীব্র ভাঙনের শিকার হচ্ছে। এই ভাঙন থেকে ঘরবাড়ি, ফসলি জমি, মসজিদ মাদ্রাসা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও কবরস্থানও রেহাই পাচ্ছে না। চলতি বছরের বন্যার সময় থেকে পানি নেমে যাওয়ার পরও ব্যাপক ভাঙনে মানুষের বাড়ি-ঘর, ফসলি জমি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। ভাঙন প্রতিরোধে এসব এলাকায় সুরক্ষা বাঁধ খুব জরুরি।

Tag :
জনপ্রিয়

সব বাবাদের প্রতি আমার শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা

নাগরপুরে যমুনা নদীর তীর ভাঙ্গনে, সুরক্ষা বাধ নির্মানে মানববন্ধন

Update Time : ১২:২৪:১৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০

নাগরপুরে যমুনা নদীর তীর ভাঙ্গনে, সুরক্ষা বাধ নির্মানে মানববন্ধন

সোলায়মান,নাগরপুর (টাংগাইল) থানা প্রতিনিধি

টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার দপ্তিয়র ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুরে যমুনা নদীর তীরে ভাঙন প্রতিরোধে সুরক্ষা বাঁধ নির্মাণের দাবি করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী। এ দাবিতে তারা শনিবার দুপুরে যমুনা নদীর তীরে মানববন্ধন ও সমাবেশ করে। যমুনা নদী ভাঙন কবলিত দপ্তিয়র ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণ এ কর্মসূচির আয়োজন করে। এ সময় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক শাহজাহান সিরাজ পান্না, দপ্তিয়র ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল হাশেম, দপ্তিয়র ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আজিজুল হক পান্না, ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক নিতুজ্জামান তুনির, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান প্রমূখ।

বক্তারা বলেন, দপ্তিয়র ও সলিমাবাদ ইউনিয়নের হাজার হাজার ঘরবাড়ি ইতিমধ্যেই নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। প্রতি বছরই গ্রামের পর গ্রাম যমুনার তীব্র ভাঙনের শিকার হচ্ছে। এই ভাঙন থেকে ঘরবাড়ি, ফসলি জমি, মসজিদ মাদ্রাসা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও কবরস্থানও রেহাই পাচ্ছে না। চলতি বছরের বন্যার সময় থেকে পানি নেমে যাওয়ার পরও ব্যাপক ভাঙনে মানুষের বাড়ি-ঘর, ফসলি জমি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। ভাঙন প্রতিরোধে এসব এলাকায় সুরক্ষা বাঁধ খুব জরুরি।