০৩:৪৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পাকিস্তানে ভয়াবহ বোমা হামলা, নিহত বেড়ে ৪০

  • MD Abdulla Haq
  • Update Time : ১১:২৭:২৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ জুলাই ২০২৩
  • ২৯ Time View

পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশে ভয়াবহ বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪০ জনে দাঁড়িয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন দুইশতাধিক মানুষ।

রোববার (৩০ জুলাই) রাজনৈতিক দল জমিয়ত উলামা ইসলাম-ফজলের (জেইউই-এফ) একটি সম্মেলনে এ বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। খাইবার পাখতুনখোয়ার বাজুয়ার বিভাগে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

খাইবার পাখতুনখোয়ার তথ্যমন্ত্রী ফিরোজ জামাল শাহ জানিয়েছেন, জমিয়ত উলামা ইসলামের দলের নেতারা বক্তব্য দেওয়ার সময় বোমার বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

এ হামলায় দলটির জ্যেষ্ঠ নেতা মাওলানা জিয়াউল্লাহ জান নিহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

খাইবার পাখতুনখোয়া পুলিশের আইজিপি আখতার হায়াত খান জানিয়েছেন, তারা প্রাথমিক তদন্তে নিশ্চিত হয়েছেন এটি একটি আত্মঘাতী বোমা হামলা ছিল।

প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরীফও এ ব্যাপারে কথা বলেছেন। বোমা হামলার সঙ্গে যারাই জড়িত তাদের আইনের আওতায় আনা হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি।

খাইবার পাখতুনখাওয়ার তথ্যমন্ত্রী আরো জানিয়েছেন, এখন আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়াই তাদের প্রধান লক্ষ্য।

তিনি বলেছেন, উদ্ধার অভিযানে সেনাবাহিনীসহ অন্যান্য বাহিনী যোগ দিয়েছে।

সম্মেলনে যোগ দেওয়া রহিম শাহ নামে এক ব্যক্তি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, সেখানে ৫০০ জনের মতো মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

তিনি বলেছেন, ‘আমরা বক্তৃতা শুনছিলাম তখন শক্তিশালী বিস্ফোরণ হয়। এতে আমি জ্ঞান হারিয়ে ফেলি। যখন জ্ঞান ফেরে তখন সর্বত্র রক্ত দেখতে পাই। মানুষ চিৎকার করছিল। গুলির শব্দও শোনা যায়

Tag :
About Author Information

MD Abdulla Haq

চুয়াডাঙ্গায় প্রায় কোটি টাকার স্বর্ণসহ দর্শনার তাছলিমা আটক

পাকিস্তানে ভয়াবহ বোমা হামলা, নিহত বেড়ে ৪০

Update Time : ১১:২৭:২৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ জুলাই ২০২৩

পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশে ভয়াবহ বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪০ জনে দাঁড়িয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন দুইশতাধিক মানুষ।

রোববার (৩০ জুলাই) রাজনৈতিক দল জমিয়ত উলামা ইসলাম-ফজলের (জেইউই-এফ) একটি সম্মেলনে এ বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। খাইবার পাখতুনখোয়ার বাজুয়ার বিভাগে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

খাইবার পাখতুনখোয়ার তথ্যমন্ত্রী ফিরোজ জামাল শাহ জানিয়েছেন, জমিয়ত উলামা ইসলামের দলের নেতারা বক্তব্য দেওয়ার সময় বোমার বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

এ হামলায় দলটির জ্যেষ্ঠ নেতা মাওলানা জিয়াউল্লাহ জান নিহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

খাইবার পাখতুনখোয়া পুলিশের আইজিপি আখতার হায়াত খান জানিয়েছেন, তারা প্রাথমিক তদন্তে নিশ্চিত হয়েছেন এটি একটি আত্মঘাতী বোমা হামলা ছিল।

প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরীফও এ ব্যাপারে কথা বলেছেন। বোমা হামলার সঙ্গে যারাই জড়িত তাদের আইনের আওতায় আনা হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি।

খাইবার পাখতুনখাওয়ার তথ্যমন্ত্রী আরো জানিয়েছেন, এখন আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়াই তাদের প্রধান লক্ষ্য।

তিনি বলেছেন, উদ্ধার অভিযানে সেনাবাহিনীসহ অন্যান্য বাহিনী যোগ দিয়েছে।

সম্মেলনে যোগ দেওয়া রহিম শাহ নামে এক ব্যক্তি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, সেখানে ৫০০ জনের মতো মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

তিনি বলেছেন, ‘আমরা বক্তৃতা শুনছিলাম তখন শক্তিশালী বিস্ফোরণ হয়। এতে আমি জ্ঞান হারিয়ে ফেলি। যখন জ্ঞান ফেরে তখন সর্বত্র রক্ত দেখতে পাই। মানুষ চিৎকার করছিল। গুলির শব্দও শোনা যায়