১২:৪২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দামুড়হুদার নাস্তিপুর ডেকে নিয়ে শিশুকে ধর্ষণ

  • Update Time : ১০:৩১:১২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ জুন ২০২৩
  • ৩৩ Time View

 

চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদা উপজেলার নাস্তিপুরে পাচ বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে তারই চাচাত ভাই তানভিরের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার (২২ জুন) দুপুরে উপজেলার নাস্তিপুরে এ ঘটনা ঘটে।তানভির (২২) দামুড়হুদা উপজেলার নাস্তিপুর গ্রামের আশরাফুল ইসলামের ছেলে।

ধর্ষণের ফলে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হলে তাৎক্ষণিক পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে চিকিৎসকের একটি টিম দীর্ঘ দু’ঘণ্টা অস্ত্রপচার সম্পন্ন করেন। এরপর থেকেই অভিযুক্ত তানভির পলাতক রয়েছে। এ ঘটনার পর চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল মামুন শিশুটিকে দেখতে হাসপাতালে ছুটে যান।

ভুক্তোভোগীর পরিবার জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে তানভির তার নিজ বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায় শিশুটিকে। পরে সেখানে নিয়ে ধর্ষণ করে। শিশুটি কাদতে কাদতে বাড়িতে এলে তার শরীর থেকে রক্তক্ষরণ হতে দেখতে পাই পরিবার। এরপরই দ্রুত তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় অভিযুক্ত তানভিরের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি করেন তারা।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডা. ফাতেহ আকরাম বলেন, শিশুটিকে ধর্ষণ করা হয়েছে। তার যোনিপথ ছিড়ে যাওয়ায় আশঙ্কাজনক অবস্থায় আছে শিশুটি। গাইনি ও সার্জারি চিকিৎসকের একটি দল অস্ত্রপচার সম্পন্ন করেছেন। আমরা শিশুটিকে পর্যবেক্ষণে রেখেছি।

দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফেরদৌস ওয়াহিদ বলেন, বিষয়টি আমরা জেনেছি। অভিযুক্ত তানভিরকে ধরতে আমরা অভিযান চালাচ্ছি।

Tag :
জনপ্রিয়

পান বরজে আগুন, পুড়ে শেষ হলো কৃষকের স্বপ্ন

দামুড়হুদার নাস্তিপুর ডেকে নিয়ে শিশুকে ধর্ষণ

Update Time : ১০:৩১:১২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ জুন ২০২৩

 

চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদা উপজেলার নাস্তিপুরে পাচ বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে তারই চাচাত ভাই তানভিরের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার (২২ জুন) দুপুরে উপজেলার নাস্তিপুরে এ ঘটনা ঘটে।তানভির (২২) দামুড়হুদা উপজেলার নাস্তিপুর গ্রামের আশরাফুল ইসলামের ছেলে।

ধর্ষণের ফলে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হলে তাৎক্ষণিক পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে চিকিৎসকের একটি টিম দীর্ঘ দু’ঘণ্টা অস্ত্রপচার সম্পন্ন করেন। এরপর থেকেই অভিযুক্ত তানভির পলাতক রয়েছে। এ ঘটনার পর চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল মামুন শিশুটিকে দেখতে হাসপাতালে ছুটে যান।

ভুক্তোভোগীর পরিবার জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে তানভির তার নিজ বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায় শিশুটিকে। পরে সেখানে নিয়ে ধর্ষণ করে। শিশুটি কাদতে কাদতে বাড়িতে এলে তার শরীর থেকে রক্তক্ষরণ হতে দেখতে পাই পরিবার। এরপরই দ্রুত তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় অভিযুক্ত তানভিরের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি করেন তারা।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডা. ফাতেহ আকরাম বলেন, শিশুটিকে ধর্ষণ করা হয়েছে। তার যোনিপথ ছিড়ে যাওয়ায় আশঙ্কাজনক অবস্থায় আছে শিশুটি। গাইনি ও সার্জারি চিকিৎসকের একটি দল অস্ত্রপচার সম্পন্ন করেছেন। আমরা শিশুটিকে পর্যবেক্ষণে রেখেছি।

দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফেরদৌস ওয়াহিদ বলেন, বিষয়টি আমরা জেনেছি। অভিযুক্ত তানভিরকে ধরতে আমরা অভিযান চালাচ্ছি।