১১:১৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বান্ধবীর ভাইয়ের সঙ্গে প্রেম, বিয়ে দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে স্কুলছাত্রী

  • Update Time : ০৮:৩৬:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৭ জুন ২০২৩
  • ৪৫ Time View

বান্ধবীর ভাইয়ের সঙ্গে প্রেম। সেই প্রেমের সম্পর্কের জেরে প্রেমিকাকে খালার বাসায় বেড়াতে নিয়ে যান প্রেমিকা সৈকত। সেখানে বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক সম্পর্কে জড়ান প্রেমিক। এরপরে বিয়ে কথা বললে বাধে বিপত্তি। প্রেমিক সাফ জানিয়ে দেন তাকে বিয়ে করা সম্ভব নয়। ফলে বাধ্য হয়ে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে বসেছেন স্কুলছাত্রী।

ঘটনাটি নাটোরের লালপুরের। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। শনিবার ভোরে উপজেলার ওয়ালিয়া সেন্টারপাড়াতে প্রেমিক সৈকত ইসলামের বাড়িতে ওই স্কুলছাত্রীকে অনশন করতে দেখা গেছে। প্রেমিক সৈকত উপজেলার ওয়ালিয়া সেন্টারপাড়া গ্রামের মাসুদ রানার ছেলে।

জানা যায়, অভিযুক্ত সৈকত ভুক্তভোগী ছাত্রীর বান্ধবীর বড় ভাই। বান্ধবীর সঙ্গে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সুবাধে ওই ছাত্রীর সঙ্গে সৈকতের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। সেই প্রেমের সম্পর্কের জেরে প্রেমিকাকে খালার বাসায় বেড়াতে নিয়ে যান প্রেমিকা সৈকত। সেখানে বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক সম্পর্কে জড়ান প্রেমিক। এরপরে বিয়ে কথা বললে বাধে বিপত্তি। প্রেমিক সাফ জানিয়ে দেন তাকে বিয়ে করা সম্ভব নয়। ফলে বাধ্য হয়ে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে বসেছেন স্কুলছাত্রী।

এ বিষয়ে প্রেমিক সৈকত ইসলামের মোবাইলে একাধিক বার যোগাযোগ করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

ওয়ালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. নূরে আলম সিদ্দিকী বলেন, এ ঘটনাটি শুনেছি। বিষয়টি নিয়ে দুই পক্ষের সঙ্গে মীমাংসার চেষ্টা চলছে

Tag :
জনপ্রিয়

চুয়াডাঙ্গায় ফ্রি হস্তশিল্প প্রশিক্ষণ চলমান

বান্ধবীর ভাইয়ের সঙ্গে প্রেম, বিয়ে দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে স্কুলছাত্রী

Update Time : ০৮:৩৬:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৭ জুন ২০২৩

বান্ধবীর ভাইয়ের সঙ্গে প্রেম। সেই প্রেমের সম্পর্কের জেরে প্রেমিকাকে খালার বাসায় বেড়াতে নিয়ে যান প্রেমিকা সৈকত। সেখানে বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক সম্পর্কে জড়ান প্রেমিক। এরপরে বিয়ে কথা বললে বাধে বিপত্তি। প্রেমিক সাফ জানিয়ে দেন তাকে বিয়ে করা সম্ভব নয়। ফলে বাধ্য হয়ে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে বসেছেন স্কুলছাত্রী।

ঘটনাটি নাটোরের লালপুরের। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। শনিবার ভোরে উপজেলার ওয়ালিয়া সেন্টারপাড়াতে প্রেমিক সৈকত ইসলামের বাড়িতে ওই স্কুলছাত্রীকে অনশন করতে দেখা গেছে। প্রেমিক সৈকত উপজেলার ওয়ালিয়া সেন্টারপাড়া গ্রামের মাসুদ রানার ছেলে।

জানা যায়, অভিযুক্ত সৈকত ভুক্তভোগী ছাত্রীর বান্ধবীর বড় ভাই। বান্ধবীর সঙ্গে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সুবাধে ওই ছাত্রীর সঙ্গে সৈকতের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। সেই প্রেমের সম্পর্কের জেরে প্রেমিকাকে খালার বাসায় বেড়াতে নিয়ে যান প্রেমিকা সৈকত। সেখানে বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক সম্পর্কে জড়ান প্রেমিক। এরপরে বিয়ে কথা বললে বাধে বিপত্তি। প্রেমিক সাফ জানিয়ে দেন তাকে বিয়ে করা সম্ভব নয়। ফলে বাধ্য হয়ে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে বসেছেন স্কুলছাত্রী।

এ বিষয়ে প্রেমিক সৈকত ইসলামের মোবাইলে একাধিক বার যোগাযোগ করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

ওয়ালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. নূরে আলম সিদ্দিকী বলেন, এ ঘটনাটি শুনেছি। বিষয়টি নিয়ে দুই পক্ষের সঙ্গে মীমাংসার চেষ্টা চলছে