০২:৪০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাণীনগরে শিক্ষক-ছাত্রীর অনৈতিক কর্মকান্ডের ভিডিও ভাইরাল

  • Update Time : ১০:২৭:০০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২ মে ২০২১
  • ৩৯ Time View

মোঃ আব্দুল মালেক,  নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি –  নওগাঁর রাণীনগর উপজেলা সদরের একটি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী গ্রন্থাগারিক ও ১নং খট্রেশ্বর ইউপির ৬নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি সাদেকুল ইসলাম পিটুর জনৈক এক ছাত্রীর সাথে অনৈতিক কর্মকান্ডের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পরেছে।

 

শনিবার দুপুর থেকে ফেসবুক পেজ ও ম্যাসেঞ্জারে এই ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায়। পিটু ওই ছাত্রীর প্রাইভেট শিক্ষক ছিলেন। এদিকে এঘটনায় ওই গ্রন্থাগারিক পিটুকে চাকুরীচু্যতসহ তার শাস্তির দাবি করেছেন এলাকাবাসী।

জানাগেছে, উপজেলার বেলোবাড়ি গ্রামের মৃত আসরত আলী মিনারের ছেলে সাদেকুল ইসলাম পিটু সদরের একটি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী গ্রন্থাগারীক হিসেবে কর্মরত আছেন। একই সাথে তিনি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট পড়াচ্ছিলেন।

 

এর মধ্যে প্রায় এক বছর আগে সদরের একটি প্রাইভেট সেন্টারে এক ছাত্রীর সাথে অনৈতিক সর্ম্পকে জড়িয়ে পরেন। এক পর্যায়ে পিটু প্রাইভেট সেন্টারে জনৈক ওই শিক্ষর্থীর সাথে ওই সেন্টারেই অনৈতিক কর্মকান্ডে লিপ্ত হন।

 

এমন দৃশ্য গোপন ক্যামেরায় ভিডিও রেকর্ড হয়। স্থানীয়রা বলছেন,যদিও এমন ঘটনার কথা অন্ত্মত এক বছর আগে শুনেছেন,কিন্তু এতো দিন পর হঠাৎ করেই গত শনিবার দুপুর থেকে ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পরেছে। প্রায় ৪ মিনিট ১০ সেকেন্ডের এই ভিডিওটি এখন সবার মোবাইলে ছড়িয়ে পরেছে। কেউ ম্যাসেঞ্জারে আবার কেউ ফেসবুক থেকে ডাউনলোড করেছেন।

 

ঘটনাটি নিয়ে এলাকায় ব্যপক তোলপার সৃষ্টি হয়েছে। গ্রন্থাগারিক পিটুকে চাকুরী থেকে বহিস্কারসহ গ্রেফতার ও শাস্ত্মির দাবি তোলা হয়েছে যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে।

এব্যাপারে পিটুর সাথে যোগযোগ করার চেষ্টা করে মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তার কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিÿক বলেন,এমন ঘটনা কানা-কানি হলে ওই ছাত্রী এক বছর আগে বিদ্যালয় থেকে টিসি নিয়ে চলে গেছেন। ঘটনাটি নতুন করে নাকি আবারো ছড়িয়ে পরেছে এমন কথা লোক মূখে শুনেছি। তিনি বলেন,ঘটনাটি আমার বিদ্যালয়ে নয়,এব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত্ম সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুশান্ত্ম কুমার মাহাতো বলেন,এব্যাপারে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার,প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটিকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছি। যদি ব্যবস্থা না নেয় তাহলে আমার উর্দ্ধতন কর্মকর্তাকে বলে ব্যবস্থা নিবো।#

Tag :
জনপ্রিয়

প্রথম রাজধানী গ্রুপের অ্যাডমিন প্যানেলের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত

রাণীনগরে শিক্ষক-ছাত্রীর অনৈতিক কর্মকান্ডের ভিডিও ভাইরাল

Update Time : ১০:২৭:০০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২ মে ২০২১

মোঃ আব্দুল মালেক,  নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি –  নওগাঁর রাণীনগর উপজেলা সদরের একটি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী গ্রন্থাগারিক ও ১নং খট্রেশ্বর ইউপির ৬নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি সাদেকুল ইসলাম পিটুর জনৈক এক ছাত্রীর সাথে অনৈতিক কর্মকান্ডের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পরেছে।

 

শনিবার দুপুর থেকে ফেসবুক পেজ ও ম্যাসেঞ্জারে এই ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায়। পিটু ওই ছাত্রীর প্রাইভেট শিক্ষক ছিলেন। এদিকে এঘটনায় ওই গ্রন্থাগারিক পিটুকে চাকুরীচু্যতসহ তার শাস্তির দাবি করেছেন এলাকাবাসী।

জানাগেছে, উপজেলার বেলোবাড়ি গ্রামের মৃত আসরত আলী মিনারের ছেলে সাদেকুল ইসলাম পিটু সদরের একটি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী গ্রন্থাগারীক হিসেবে কর্মরত আছেন। একই সাথে তিনি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট পড়াচ্ছিলেন।

 

এর মধ্যে প্রায় এক বছর আগে সদরের একটি প্রাইভেট সেন্টারে এক ছাত্রীর সাথে অনৈতিক সর্ম্পকে জড়িয়ে পরেন। এক পর্যায়ে পিটু প্রাইভেট সেন্টারে জনৈক ওই শিক্ষর্থীর সাথে ওই সেন্টারেই অনৈতিক কর্মকান্ডে লিপ্ত হন।

 

এমন দৃশ্য গোপন ক্যামেরায় ভিডিও রেকর্ড হয়। স্থানীয়রা বলছেন,যদিও এমন ঘটনার কথা অন্ত্মত এক বছর আগে শুনেছেন,কিন্তু এতো দিন পর হঠাৎ করেই গত শনিবার দুপুর থেকে ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পরেছে। প্রায় ৪ মিনিট ১০ সেকেন্ডের এই ভিডিওটি এখন সবার মোবাইলে ছড়িয়ে পরেছে। কেউ ম্যাসেঞ্জারে আবার কেউ ফেসবুক থেকে ডাউনলোড করেছেন।

 

ঘটনাটি নিয়ে এলাকায় ব্যপক তোলপার সৃষ্টি হয়েছে। গ্রন্থাগারিক পিটুকে চাকুরী থেকে বহিস্কারসহ গ্রেফতার ও শাস্ত্মির দাবি তোলা হয়েছে যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে।

এব্যাপারে পিটুর সাথে যোগযোগ করার চেষ্টা করে মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তার কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিÿক বলেন,এমন ঘটনা কানা-কানি হলে ওই ছাত্রী এক বছর আগে বিদ্যালয় থেকে টিসি নিয়ে চলে গেছেন। ঘটনাটি নতুন করে নাকি আবারো ছড়িয়ে পরেছে এমন কথা লোক মূখে শুনেছি। তিনি বলেন,ঘটনাটি আমার বিদ্যালয়ে নয়,এব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত্ম সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুশান্ত্ম কুমার মাহাতো বলেন,এব্যাপারে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার,প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটিকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছি। যদি ব্যবস্থা না নেয় তাহলে আমার উর্দ্ধতন কর্মকর্তাকে বলে ব্যবস্থা নিবো।#