০১:৫০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নওগাঁয় শিলপাটা দিয়ে মাকে হত্যার অভিযোগে ছেলে-স্ত্রী আটক

  • Update Time : ০৮:০৪:৩০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ এপ্রিল ২০২১
  • ৪০ Time View

 

মোঃ আব্দুল মালেক, নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি: নওগাঁর আত্রাইয়ে পারিবারিক কলহের জেরে মা জাহিদাকে (৬০) শিলপাটা দিয়ে আঘাত করে হত্যার পর গোপনে কবর দেওয়ার প্রস্তুতি চলার সময় ছেলে ও ছেলের স্ত্রীকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার উপজেলার দিঘা গ্রামের মৈত্রীপাড়ায় এ ঘটনাটি ঘটেছে। আটকৃতরা হলেন জাহিদার ছেলে জাহিদুুল ইসলাম ও জাহিদুলের স্ত্রী রহিমা খাতুন। নিহত জাহিদা দিঘা গ্রামের মৃত হারান প্রামানিকের স্ত্রী। আত্রাই থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ জানান, শুক্রবার বেলা ১১টায় তাদের গ্রামের বাড়িতে পারিবারিক কলহের জেরে বাকবিতান্ডা শুরু হয়। এমতাবস্থায় মা জাহিদাকে শীলপাটা দিয়ে মাথায় আঘাত করেন তার ছেলে জাহিদুুল ইসলাম ও তার স্ত্রী রহিমা খাতুন। এতে তিনি ঘটনাস্থালেই মারা যান জাহিদা। এরপর কাউকে না জানিয়ে মা জাহিদা স্বাভাবিক ভাবে মারা গেছে বলে প্রচার করে ছেলে জাহিদুল। এ সময় নিজ আতœীয়দের ছাড়া স্থানীয়দের মরদেহ দেখতেও দেননি। এদিকে জাহিদুল তার মাকে কবর দেওয়ার প্রস্তুতি গ্রহণ করেন। এতে প্রতিবেশীদের সন্দেহ দেখা দেয় জাহিদুলের চলাফেরা ও কথোকথনে। এমতাবস্তায় প্রতিবেশীরা জোর করে জাহিদার মরদেহ দেখে মাথায় আঘাতের চিহ্ন দেখতে পান। ঘটনাটি জানতে পেরে প্রতিবেশীরা পুলিশে সংবাদ দেন। ওসি আরো জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে জাহিদার মাথায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এ সময় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ছেলে জাহিদুুল ইসলাম ও জাহিদুলের স্ত্রী রহিমা খাতুন শীলপাটা দিয়ে আঘাত করার স্বীকার করেন। এ ঘটনায় ছেলে জাহিদুুল ও তার স্ত্রী রহিমাকে আটক করা হয়েছে। আর নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। আটককৃতদের শনিবার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হবে।

Tag :
জনপ্রিয়

প্রথম রাজধানী গ্রুপের অ্যাডমিন প্যানেলের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত

নওগাঁয় শিলপাটা দিয়ে মাকে হত্যার অভিযোগে ছেলে-স্ত্রী আটক

Update Time : ০৮:০৪:৩০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ এপ্রিল ২০২১

 

মোঃ আব্দুল মালেক, নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি: নওগাঁর আত্রাইয়ে পারিবারিক কলহের জেরে মা জাহিদাকে (৬০) শিলপাটা দিয়ে আঘাত করে হত্যার পর গোপনে কবর দেওয়ার প্রস্তুতি চলার সময় ছেলে ও ছেলের স্ত্রীকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার উপজেলার দিঘা গ্রামের মৈত্রীপাড়ায় এ ঘটনাটি ঘটেছে। আটকৃতরা হলেন জাহিদার ছেলে জাহিদুুল ইসলাম ও জাহিদুলের স্ত্রী রহিমা খাতুন। নিহত জাহিদা দিঘা গ্রামের মৃত হারান প্রামানিকের স্ত্রী। আত্রাই থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ জানান, শুক্রবার বেলা ১১টায় তাদের গ্রামের বাড়িতে পারিবারিক কলহের জেরে বাকবিতান্ডা শুরু হয়। এমতাবস্থায় মা জাহিদাকে শীলপাটা দিয়ে মাথায় আঘাত করেন তার ছেলে জাহিদুুল ইসলাম ও তার স্ত্রী রহিমা খাতুন। এতে তিনি ঘটনাস্থালেই মারা যান জাহিদা। এরপর কাউকে না জানিয়ে মা জাহিদা স্বাভাবিক ভাবে মারা গেছে বলে প্রচার করে ছেলে জাহিদুল। এ সময় নিজ আতœীয়দের ছাড়া স্থানীয়দের মরদেহ দেখতেও দেননি। এদিকে জাহিদুল তার মাকে কবর দেওয়ার প্রস্তুতি গ্রহণ করেন। এতে প্রতিবেশীদের সন্দেহ দেখা দেয় জাহিদুলের চলাফেরা ও কথোকথনে। এমতাবস্তায় প্রতিবেশীরা জোর করে জাহিদার মরদেহ দেখে মাথায় আঘাতের চিহ্ন দেখতে পান। ঘটনাটি জানতে পেরে প্রতিবেশীরা পুলিশে সংবাদ দেন। ওসি আরো জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে জাহিদার মাথায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এ সময় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ছেলে জাহিদুুল ইসলাম ও জাহিদুলের স্ত্রী রহিমা খাতুন শীলপাটা দিয়ে আঘাত করার স্বীকার করেন। এ ঘটনায় ছেলে জাহিদুুল ও তার স্ত্রী রহিমাকে আটক করা হয়েছে। আর নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। আটককৃতদের শনিবার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হবে।