১১:৪১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিকাশ প্রতারণা: সিমকার্ডসহ চক্রের ৫ সদস্য আটক

  • Update Time : ১০:২৪:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১
  • ৫০ Time View

স্টাফ রিপোর্টার: গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা উপজেলার রায়নগর গ্রামে অভিযান চালিয়ে বিকাশ প্রতারণা চক্রের ৫ সদস্যকে আটক করেছে র্যাব। এ সময় আটককৃতদের কাছ থেকে ১৫টি মোবাইল সেট, ২৭৩ পিস সিমকার্ড, ১টি ল্যাপটপ উদ্ধার করা হয়।

এছাড়া তাদের কাছ থেকে জব্দ করা হয় ২২ পিস ইয়াবা ও ১২ বোতল ফেনসিডিল এবং ২৯ হাজার ৫শ’ টাকা। এ ঘটনায় আটককৃতদের বিরুদ্ধে ভাঙ্গা থানায় মামলা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার ভোরে র্যাব-৮ ফরিদপুর ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত কোম্পানি কমান্ডার (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার) মো. খোরশেদ আলম ও অত্র কোম্পানির স্কোয়াড কমান্ডার (সহকারী পুলিশ সুপার) মাহিদুল হাসানের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

আটকৃতরা হলেন- মো. খালেক মাতুব্বরের পুত্র মো. ফারুক মাতুব্বর (৩৫), মো. আনোয়ার হোসেনের পুত্র মো. সুমন হোসেন (২৮), মতলেব বেপারির পুত্র মো. শফিকুল ইসলাম (২৩), মৃত কালাম মাতুব্বরের পুত্র মো. সজিব মাতুব্বর (১৯), মো. আলী হোসেন মাতুব্বরের পুত্র মো. আনোয়ার হোসেন (২১)। এদের সবার বাড়ি উপজেলার রায়নগর ও জাঙ্গালপাশা গ্রামে।

আটককৃতরা র্যাবের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের স্বীকার করে যে, তারা বিভিন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে প্রতারণার মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে। প্রতারকেরা অসাধু মোবাইল সিম বিক্রেতার সঙ্গে যোগসাজশ করে ভুয়া নামে সিম কার্ড রেজিস্ট্রেশন ও ওই সিমকার্ড ব্যবহার করে বিকাশ অ্যাকাউন্ট খোলে। এরপর প্রতারক চক্রের সদস্যরা ওইসব সিমকার্ড ব্যবহার করে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের সহজ সরল সাধারণ জনগণের কাছে নিজেকে বিকাশ হেড অফিসের কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে ফোন করে। তারা কৌশলে তাদের বিকাশ পিন কোড জেনে নেয় এবং স্মার্টফোনে বিকাশ অ্যাপস ব্যবহার করে উক্ত সাধারণ লোকজনের বিকাশ এ্যাকাউন্ট হতে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেয়

Tag :
জনপ্রিয়

চুয়াডাঙ্গায় ফ্রি হস্তশিল্প প্রশিক্ষণ চলমান

বিকাশ প্রতারণা: সিমকার্ডসহ চক্রের ৫ সদস্য আটক

Update Time : ১০:২৪:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার: গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা উপজেলার রায়নগর গ্রামে অভিযান চালিয়ে বিকাশ প্রতারণা চক্রের ৫ সদস্যকে আটক করেছে র্যাব। এ সময় আটককৃতদের কাছ থেকে ১৫টি মোবাইল সেট, ২৭৩ পিস সিমকার্ড, ১টি ল্যাপটপ উদ্ধার করা হয়।

এছাড়া তাদের কাছ থেকে জব্দ করা হয় ২২ পিস ইয়াবা ও ১২ বোতল ফেনসিডিল এবং ২৯ হাজার ৫শ’ টাকা। এ ঘটনায় আটককৃতদের বিরুদ্ধে ভাঙ্গা থানায় মামলা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার ভোরে র্যাব-৮ ফরিদপুর ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত কোম্পানি কমান্ডার (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার) মো. খোরশেদ আলম ও অত্র কোম্পানির স্কোয়াড কমান্ডার (সহকারী পুলিশ সুপার) মাহিদুল হাসানের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

আটকৃতরা হলেন- মো. খালেক মাতুব্বরের পুত্র মো. ফারুক মাতুব্বর (৩৫), মো. আনোয়ার হোসেনের পুত্র মো. সুমন হোসেন (২৮), মতলেব বেপারির পুত্র মো. শফিকুল ইসলাম (২৩), মৃত কালাম মাতুব্বরের পুত্র মো. সজিব মাতুব্বর (১৯), মো. আলী হোসেন মাতুব্বরের পুত্র মো. আনোয়ার হোসেন (২১)। এদের সবার বাড়ি উপজেলার রায়নগর ও জাঙ্গালপাশা গ্রামে।

আটককৃতরা র্যাবের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের স্বীকার করে যে, তারা বিভিন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে প্রতারণার মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে। প্রতারকেরা অসাধু মোবাইল সিম বিক্রেতার সঙ্গে যোগসাজশ করে ভুয়া নামে সিম কার্ড রেজিস্ট্রেশন ও ওই সিমকার্ড ব্যবহার করে বিকাশ অ্যাকাউন্ট খোলে। এরপর প্রতারক চক্রের সদস্যরা ওইসব সিমকার্ড ব্যবহার করে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের সহজ সরল সাধারণ জনগণের কাছে নিজেকে বিকাশ হেড অফিসের কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে ফোন করে। তারা কৌশলে তাদের বিকাশ পিন কোড জেনে নেয় এবং স্মার্টফোনে বিকাশ অ্যাপস ব্যবহার করে উক্ত সাধারণ লোকজনের বিকাশ এ্যাকাউন্ট হতে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেয়