১১:০৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জনৈক ব্যক্তির ফেসবুকে আবেগঘন লাইভ দেখে নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী নিয়ে বাড়িতে হাজির হলো পুলিশ

  • Update Time : ০৮:৩৪:৩৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১
  • ৫০ Time View

 

 

পুলিশ সুপারের মানবিকতায় নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী পেল খাদ্যের জন্য ফেসবুক লাইভে আকুতি জানানো সেই ভ্রাম্যমাণ চায়ের দোকানদার রবিউল সরদার।

 

গত ইং ১৭/০৪/২০২১খ্রিঃ ফেসবুক লাইভে এসে খাদ্যের জন্য করুন আকুতি জানান, খাবার দেন, নইলে গুলি করে মেরে ফেলেন!তার এই আবেগঘন লাইভটি জেলা পুলিশের মিডিয়া মনিটরিং সেলের দৃষ্টিতে আসে এবং তার পরিচয় নিশ্চিত করে জানতে পারেন যে তার বাসা কোতয়ালী থানাধীন ঘোপ নোয়াপাড়া এলাকায়। সে একটি ভাড়া করা বাসায় থাকে এবং  পেশায় একজন ভ্রাম্যমাণ চায়ের দোকানদার। ভ্যানে করে বিভিন্ন স্থানে চা-বিস্কুট বিক্রয় করে চলত তার সংসার কিন্তু করোনা ভাইরাসের জন্য সৃষ্ট লকডাউনে তার ব্যবসা এখন বন্ধ তাই খাদ্য অভাবে আছে তার পুরো পরিবারটি।

 

বিষয়টি যশোর জেলার সম্মানিত পুলিশ সুপার জনাব প্রলয় কুমার জোয়াদার, বিপিএম(বার), পিপিএম মহোদয় কে জানানো হয়।

 

পুলিশ সুপার মহোদয় পুরো বিষয়টি মানবিক দৃষ্টিতে দেখেন এবং অতিঃ পুলিশ সুপার, ‘‘ক” সার্কেল, যশোর কে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করার নির্দেশ প্রদান করেন।

 

অদ্য ১৮/০৪/২০২১খ্রিঃ সকাল ১০.০০ ঘটিকায় জনাব মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন, অতিঃ পুলিশ সুপার, ‘‘ক” সার্কেল, যশোর ও পুলিশ পরিদর্শক (নিঃ) জনাব রুপণ

কুমার সরকার, পিপিএম, জেলা গোয়েন্দা শাখা সহ একটি টিম উক্ত ব্যক্তির বাড়িতে নগদ অর্থ ও খাদ্যসামগ্রী নিয়ে হাজির হন।

 

পুলিশ সুপারের পাঠানো খাদ্য ও নগদ অর্থ পেয়ে রবিউল সরদার অনেক খুশি। সে কিছুটা আবেঘাপ্লুত হয়ে পরেন এবং বলেন সত্যিই আমি কখনো ভাবিনি আমার মত একজন দিনমজুরের জন্য পুলিশ সুপার মহোদয় খাদ্য পাঠাবেন।

 

আসুন আমরা প্রত্যেকে নিজ নিজ জায়গা থেকে সামর্থ্য অনুযায়ী এই সকল ব্যক্তিদের জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেই।

Tag :
জনপ্রিয়

চুয়াডাঙ্গায় ফ্রি হস্তশিল্প প্রশিক্ষণ চলমান

জনৈক ব্যক্তির ফেসবুকে আবেগঘন লাইভ দেখে নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী নিয়ে বাড়িতে হাজির হলো পুলিশ

Update Time : ০৮:৩৪:৩৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১

 

 

পুলিশ সুপারের মানবিকতায় নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী পেল খাদ্যের জন্য ফেসবুক লাইভে আকুতি জানানো সেই ভ্রাম্যমাণ চায়ের দোকানদার রবিউল সরদার।

 

গত ইং ১৭/০৪/২০২১খ্রিঃ ফেসবুক লাইভে এসে খাদ্যের জন্য করুন আকুতি জানান, খাবার দেন, নইলে গুলি করে মেরে ফেলেন!তার এই আবেগঘন লাইভটি জেলা পুলিশের মিডিয়া মনিটরিং সেলের দৃষ্টিতে আসে এবং তার পরিচয় নিশ্চিত করে জানতে পারেন যে তার বাসা কোতয়ালী থানাধীন ঘোপ নোয়াপাড়া এলাকায়। সে একটি ভাড়া করা বাসায় থাকে এবং  পেশায় একজন ভ্রাম্যমাণ চায়ের দোকানদার। ভ্যানে করে বিভিন্ন স্থানে চা-বিস্কুট বিক্রয় করে চলত তার সংসার কিন্তু করোনা ভাইরাসের জন্য সৃষ্ট লকডাউনে তার ব্যবসা এখন বন্ধ তাই খাদ্য অভাবে আছে তার পুরো পরিবারটি।

 

বিষয়টি যশোর জেলার সম্মানিত পুলিশ সুপার জনাব প্রলয় কুমার জোয়াদার, বিপিএম(বার), পিপিএম মহোদয় কে জানানো হয়।

 

পুলিশ সুপার মহোদয় পুরো বিষয়টি মানবিক দৃষ্টিতে দেখেন এবং অতিঃ পুলিশ সুপার, ‘‘ক” সার্কেল, যশোর কে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করার নির্দেশ প্রদান করেন।

 

অদ্য ১৮/০৪/২০২১খ্রিঃ সকাল ১০.০০ ঘটিকায় জনাব মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন, অতিঃ পুলিশ সুপার, ‘‘ক” সার্কেল, যশোর ও পুলিশ পরিদর্শক (নিঃ) জনাব রুপণ

কুমার সরকার, পিপিএম, জেলা গোয়েন্দা শাখা সহ একটি টিম উক্ত ব্যক্তির বাড়িতে নগদ অর্থ ও খাদ্যসামগ্রী নিয়ে হাজির হন।

 

পুলিশ সুপারের পাঠানো খাদ্য ও নগদ অর্থ পেয়ে রবিউল সরদার অনেক খুশি। সে কিছুটা আবেঘাপ্লুত হয়ে পরেন এবং বলেন সত্যিই আমি কখনো ভাবিনি আমার মত একজন দিনমজুরের জন্য পুলিশ সুপার মহোদয় খাদ্য পাঠাবেন।

 

আসুন আমরা প্রত্যেকে নিজ নিজ জায়গা থেকে সামর্থ্য অনুযায়ী এই সকল ব্যক্তিদের জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেই।